Breaking News
Home > খেলাধুলা > মাশরাফির যত হতাশা ওই দুটো আউটেই.

মাশরাফির যত হতাশা ওই দুটো আউটেই.

ক্রীড়া প্রতিবেদক : প্রথমবারের মতো কোনো বৈশ্বিক আসরের সেমিফাইনালের মহামঞ্চে ওঠা বাংলাদেশের বিপক্ষে ৯ উইকেটের বিশাল জয়! নাহ, এতটা কল্পনার বাইরেই ছিল বিরাট কোহলির। ৯৬ রানের হার না মানা ইনিংসে সহজ জয় নিশ্চিত করার পর ভারত অধিনায়ক নির্দ্বিধায় সে কথা বলেছেনও, ‘জয়ের ব্যবধান যে ৯ উইকেটের হবে, এটি আমরা আশাই করিনি।

বাংলাদেশ বরং লড়াই জমিয়ে তুলবে বলেই আশা করেছিল সবাই। সে লড়াই জমতে হলে নিজেদের সংগ্রহ যে অবশ্যই ৩০০ পেরিয়ে যাওয়া জরুরি ছিল, রোহিত শর্মা-শিখর ধাওয়ান-কোহলিদের ব্যাটে সেটি প্রমাণিতও। যদিও একসময় বাংলাদেশের ইনিংস সেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়ার পথেই এগোচ্ছিল। বিশেষ করে তৃতীয় উইকেটে তামিম ইকবাল আর মুশফিকুর রহিমের ১২৩ রানের পার্টনারশিপে স্কোর বোর্ডে ৩০০-এর বেশি রান জমা করার ব্যাপারটি খুব দূরেরও মনে হচ্ছিল না। কিন্তু হঠাৎ করেই সেটিকে কোন সুদূরের বলে মনে হতে থাকল। থাকল এ জন্যই যে দ্রুতই তামিম আর মুশফিকের উইকেট গেল। ম্যাচেও লড়াইয়ের সম্ভাবনা সম্ভবত তখন থেকেই হারাতে শুরু করল। মাশরাফি বিন মর্তুজার কাছেও দ্রুত ওই দুজনের বিদায়কে মনে হয়েছে টার্নিং পয়েন্ট। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ অধিনায়কের কণ্ঠে আরো বেশি রান করতে না পারার হতাশাও, ‘আমরা ৩০০ রান করতে পারতাম। এমনকি করতে পারতাম ৩২০ রানও। কিন্তু আমাদের সেট ব্যাটসম্যানরা আউট হয়ে যাওয়ার কারণেই আর তা হলো না। ওটা আমাদের জন্য ধাক্কাই ছিল। ’

সেই ধাক্কা সামলে আড়াই শ পেরোনো গেলেও ভারতের ব্যাটিং লাইন বুঝিয়ে দিল এত অল্পে লড়াই জমিয়ে তোলা সম্ভব নয়। কোহলির কণ্ঠে উচ্ছ্বাস খেলে যাওয়াও স্বাভাবিক এ কারণে যে, “এটি আমাদের জন্য ছিল আরেকটি ‘কমপ্লিট গেম’। যেভাবে আমরা জিতলাম, তা আমাদের টপ অর্ডারের গভীরতাও প্রমাণ করে। ” আর ওপেনার রোহিত শর্মা তো এদিন বড় ইনিংস খেলার প্রতিজ্ঞা করেই নেমেছিলেন। ২০১৫-র বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনালেও বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছিলেন। সেবার তাঁর ১৩৭ রানের ইনিংসের সঙ্গে অবশ্য আম্পায়ারিং বিতর্কের ছোঁয়াও ছিল। এবার তাঁর একাদশ ওয়ানডে সেঞ্চুরিতে তাও নেই। অপরাজিত ১২৩ রানের ইনিংস খেলা রোহিত ম্যাচ সেরার পুরস্কার নিয়ে বলছিলেন, ‘দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেললাম। দল জেতায় ভালোলাগা আরো বেশি। গত দুই ম্যাচেই বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করছিলাম। আজ দৃঢ়প্রতিজ্ঞ ছিলাম। নিজেকে বলছিলাম যতটা সম্ভব ব্যাটিং করে যাও। এখন আমাদের আরেকটি বাধা পেরোনোই কেবল বাকি। ’

Check Also

বাংলাদেশ বনাম দক্ষিন আফ্রিকা ১ম T20 লাইভ দেখুন।

বাংলাদেশ বনাম দক্ষিন আফ্রিকা ১ম T20 লাইভ দেখুন। বাংলাদেশ বনাম দক্ষিন আফ্রিকা ১ম T20 লাইভ …