Breaking News
Home > লাইফস্টাইল > যে তিনটি জায়গায় ভুলেও কাউকে সাহায্য করবেন না

যে তিনটি জায়গায় ভুলেও কাউকে সাহায্য করবেন না

কিয়ামত বা হাশরের কথা একটু গভীরভাবে চিন্তা করলে যে কোন ব্যক্তির গা শিউরে উঠবে। সেদিন প্রতিটি মানুষের ভাল ও মন্দের হিসাব নিকাশ নেওয়া হবে। এ ভাল মন্দ মাপার জন্য স্থাপন করা হবে ‘মিযান’ অর্থাৎ দাড়িপাল্লা। নেকি ও বদীর ওজন মাপা হবে। যাদের নেকির ওজন ভারি হবে তারাই সফল। আর যাদের হালকা হবে তাদের রায় দেবেন স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা।
 
এ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা কোরআনে ঘোষণা করেন, ‘আর সেদিন যথার্থই পরিমাণ হবে। যাদের নেকীর পাল্লা ভারি হবে, তারাই সফলকাম হবে এবং যাদের নেকির পাল্লা হালকা হবে তারা এমন হবে, যারা নিজেরা নিজেদের ক্ষতি করেছে। কেননা, তারা আমার আয়াতসমূহকে অস্বীকার করতো।’ (সুরা আরাফ, আয়াত ৮/৯) হযরত আয়েশা রা. একদিন জাহান্নামের কথা স্মরণ করে কেঁদে দিলেন। মহানবী সা. জিজ্ঞাসা করলেন, তুমি কাঁদছ কেন ? তিনি (আয়েশা) বললেন, দোযখের কথা স্মরণ হয়েছে তাই কাঁদছি। আয়েশা রা. নবীজীকে বললেন, কিয়ামতের দিন আপনি আপনার পরিবার-পরিজনের কথা স্মরণ রাখবেন কি?
জবাবে মহানবী সা. বললেন, হে আয়েশা! জেন রাখ, তিনটি জায়গা এমন হবে যে সময়ে কেউ কাউকে স্মরণ করবে না। তার একটি হলো ‘মীযানে’র (ওজন মাপার যন্ত্র) কাছে, যেখানে কেউ কাউকে স্মরণ করবে না। যতক্ষণ সে এ কথা না জানবে যে, তার আমলের পাল্লা ভারি রয়েছে না হাল্কা হয়েছে। দ্বিতীয়, আমলনামা দেয়ার সময় যখন তাকে বলা হবে, এই নাও তোমার আমালনামা তাকে ডান হাতে দেয়া হয়েছে না বাম হাতে দেয়া হয়েছে? আর তৃতীয় হল পুলসিরাত। যখন তা দোযখের উপর স্থাপন করা হবে এবং তা পার হবার জন্য সকলকে আদেশ করা হবে। (আবু দাউদ) আলোচিত আয়াতে ও হাদিস দ্বারা প্রমাণ হয়, হাশরের দিন ভাল মন্দ সব কিছু মিযানের পাল্লায় ওজন করেই জান্নাত ও জাহান্নামের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Check Also

জীবনসঙ্গী হিসেবে নারীরা যে ধরনের পুরুষ পছন্দ করেন!!

লম্বা পুরুষ বরাবরই নারীদের কাছে বেশ আকর্ষণীয়। সম্পর্ক স্থাপন এবং জীবনসঙ্গী হিসেবে লম্বা গড়নের পুরুষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *