Breaking News
Home > অন্যান্য > ভাড়া নেই, স্ত্রীর মৃতদেহ ঘাড়ে হাঁটলেন স্বামী! পড়ে কাঁদবেন আপনি!

ভাড়া নেই, স্ত্রীর মৃতদেহ ঘাড়ে হাঁটলেন স্বামী! পড়ে কাঁদবেন আপনি!

টাকার অভাবে গাড়ি ভাড়া করার সামর্থ নেই। বিনা পয়সায় গাড়ি দেয়নি হাসপাতালও। তাই  স্ত্রীর মৃতদেহ ঘাড়ে করে দীর্ঘ ১০ কিলোমিটার হাঁটলেন স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের ভওয়ানি পাটনায়।

দীর্ঘদিন যক্ষায় ভোগার পর বুধবার জেলা হাসপাতালে মৃত্যু হয় দানা মাঝির স্ত্রীর। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে মৃতদেহটি বাড়িতে পৌঁছে দিতে বললে টাকা চেয়ে বসে তারা। কিন্তু আর্থিক সামর্থ না থাকায় তা দিতে পারেননি দানা মাঝি। কোনো উপায় না পেয়ে স্ত্রীর মৃতদেহ কাঁধে তুলে হাঁটা শুরু করেন তিনি। বাবার সঙ্গে হাঁটা শুরু করেন দানা মাঝির ১২ বছরের মেয়েও।

ভওয়ানিপাটনা জেলা হাসপাতাল থেকে মেলঘরায় তার বাড়ির দূরত্ব ৬০ কিলোমিটার। পায়ে হেঁটে ১০ কিলোমিটার যাওয়ার পর স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের নজরে পড়েন মাঝি। তাদের উদ্যোগে একটি গাড়ির ব্যবস্থা হয়। সেই গাড়িতেই বাড়ি পৌঁছান তিনি।

যে সাংবাদিক গাড়ির ব্যবস্থা করেন তাকে মাঝি বলেন, ‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নিজের অসামর্থের কথা বলেছি। তাদের অনেক অনুরোধ করেছি। কিন্তু তারা আমাকে সাহায্য করতে অস্বীকার করেন।’

ভারতের দরিদ্র রাজ্যগুলোর মধ্যে উড়িষ্যা অন্যতম। সেখানে চিকিৎসা সেবা পাওয়াও কঠিন। তবে দুঃস্থ পরিবারগুলির কথা ভেবে গত ফেব্রুয়ারিতেই ‘‌মহাপ্রয়াণ’‌ প্রকল্প চালু করেছিল উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সরকার।

তাতে বিনা খরচে সরকারি হাসপাতাল থেকে গাড়ি পাঠিয়ে মৃতদেহ পৌঁছে দেওয়ার হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। ৩৭টি সরকারি হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্সও দেওয়া হয়। কিন্তু তা সত্ত্বেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এমন ব্যবহারে প্রশ্ন উঠছে।

এই ঘটনায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাজ্যের বিধানসভা সদস্য কালিকেশ সিং দেও। হরিশচন্দ্র যোজনার আওতায় ওই পরিবারকে আর্থিক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন জেলাশাসক।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

রূপচর্চা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক যে কোন তথ্যের জন্য আমাদের পেজ স্বাস্থ্য সেবা ।। Health Tips এ লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন।

Check Also

ফুলসজ্জার রাতে ঘরে বউ রেখেই আত্মহত্যা করলো বর, এর কারন কি? এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য!

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় ফুলসজ্জার রাতে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করলো বর। সে বাসাইল উপজেলার কাউলজানী ইউনিয়নের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *