Breaking News
Home > জানা অজানা > বিয়ের আগে যেসব মেডিক্যাল টেস্ট না করলে বিপদ হতে পারে

বিয়ের আগে যেসব মেডিক্যাল টেস্ট না করলে বিপদ হতে পারে

বর্তমান সময়ে ছেলে বা মেয়ে দেখার রীতি বদলে গেছে অনেকটাই। এখন মেয়ে বা ছেলের বিয়ে দিতে গেলে শুধু পছন্দ হলেই চলে না। তাদের বেশ কিছু মেডিক্যাল টেস্ট করানোরও পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা। কিন্তু

পাত্র বা পাত্রীর কী কী মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো উচিত, সে সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। আবার এ প্রজন্মের অনেকেই এ বিষয়ে সচেতন। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে এগোতে তাদেরও অনীহা। কিছুটা লজ্জা। কিছুটা ভয়ও বটে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগে ভয় বা লজ্জা না পেলে পরবর্তী জীবনটা অনেকটাই সুখকর হয়।

এবার এক ঝলকে দেখে নেয়া যাক বিয়ের আগে কী কী মেডিক্যাল টেস্ট করানো উচিত-

রক্তের গ্রুপ :
পাত্র বা পাত্রীর ব্লাড গ্রুপ জানা একান্ত জরুরি। কারণ নেগেটিভ ও পজ়িটিভ ব্লাড গ্রুপের ছেলে-মেয়ের বিয়ে হলে পরবর্তী সময়ে সন্তান ধারণে বিপত্তি দেখা যায়। অনেক সময় গর্ভেই সন্তানের মৃত্যু হয়। কিংবা জন্মের পর সন্তান জন্ডিসে আক্রান্ত হতে পারে। মস্তিষ্কেরও ক্ষতি হতে পারে।
যৌনসংক্রমণ সংক্রান্ত পরীক্ষা :
পাত্র বা পাত্রীর শরীরে কোনও যৌন সংক্রমণ আছে কি না সেটা জেনে নেয়া জরুরি। একমাত্র মেডিক্যাল টেস্টই বলে দিতে পারে পাত্র বা পাত্রীর HIV, গনোরিয়া, সিফিলিসের মতো যৌনরোগ আছে কিনা।
শুক্রাণু পরীক্ষা :
অনেক সময় সন্তান ধারণে অসুবিধার মুখে পড়তে হয় স্বামী স্ত্রীকে। এর কারণ হতে পারে স্বামী বা স্ত্রীয়ের অক্ষমতা। পুরুষের যদি কোনো অক্ষমতা থেকে থাকে, তা বিয়ের আগে শুক্রাণু পরীক্ষা করালেই ধরা পড়তে পারে।
রূপচর্চা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক যে কোন তথ্যের জন্য আমাদের পেজ স্বাস্থ্য সেবা ।। Health Tips এ লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন।

Check Also

মাত্র ৫ মিনিটে এসি ছাড়াই ঘর ঠাণ্ডা করার দারুণ উপায়!

চলছে প্রচণ্ড গরম! অস্থির হয়ে পড়েছেন প্রায় সবাই। সারাদিন না হয় কোনরকম সহ্য করা গেলো, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *