Breaking News
Home > Breaking > মেহেদীর রং না শুকাতেই মাহিকে তালাক?

মেহেদীর রং না শুকাতেই মাহিকে তালাক?

এক স্ত্রীকে নিয়ে দুই স্বামীর লড়াই বেশ জমে উঠেছে। চিত্র নায়িকা মাহিয়া মাহির বিয়ে কেলেংকারি নিয়ে কম আলোচনা হচ্ছে না। এরই মাঝে হানিমুনের নামে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন এ নায়িকা। কথিত স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করে এখন দৃশ্যপটে নিজেই নেই।

এদিকে, মন ভালো নেই চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির স্বামী পারভেজ মাহমুদ অপুর। মাহিয়া মাহি অনেকটা লুকিয়ে ব্যবসায়ী পারভেজের সঙ্গে বিয়ের কাজটা সেরে ফেললেও শেষ পর্যন্ত তা আর গোপন থাকেনি। তাই তড়িঘড়ি করে পরের দিন মাহি তার স্বামীকে নিয়ে গণমাধ্যমে মুখোমুখি হন। স্বামী পারভেজকে সাংবাদিকদের সঙ্গে পরিচয়ও করিয়ে দেন।

ঐ পর্যন্ত সব কিছু ঠিকঠাকই ছিল। কিন্ত আনন্দে বিষাদের ছায়া নেমে আসে তখনই যখন মাহিকে স্ত্রী হিসাবে দাবি করেন তারই বন্ধু শাহরিয়ার শাওন। শুধু তাই নয়, মাহির সঙ্গে শাহরিয়ার শাওনের বেশ কিছু অন্তরঙ্গ ছবিও শাওন ফেসবুকে ছেড়ে দেয়।এসব ছবি ছড়িয়ে পরার পর পারভেজ অনেকটা আড়ালে চলে গেছেন। তার মন-মেজাজ খারাপ। মাহির সঙ্গে শাহরিয়ার শাওনের বিয়ের দাবির বিষয়টি পারভেজ মেনে নিতে পারছে না!

এ ব্যাপারে পারভেজের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তাকে ফোন করা হলেও পাওয়া যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পারভেজ গণমাধ্যমকে এড়িয়ে চলছেন। মহিকে স্ত্রী হিসাবে শাওনের দাবি করা, শাওনের বিরুদ্ধে মাহির মামলা দায়ের, শাওন-মাহির আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পাড়ার পর থেকেই সে বন্ধুদেরও এড়িয়ে চলছেন।পুরো ঘটনায় পারভেজ বিরক্ত ও বিব্রত। এ ঘটনায় মাহিও বিরক্ত।

সিলেট থেকে পারভেজ জানিয়েছেন, মাহিয়া মাহির আগের বিয়ে, অন্তরঙ্গ ছবি এবং মামলা নিয়ে বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। পারভেজ মাহমুদ অপুর পরিবারের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যে কাবিনের টাকা ফেরত দিয়ে মাহিকে তালাক দিতে পারে অপু।

উল্লেখ্য, উপরোক্ত খবরটি প্রকাশিত হয়েছে দেশের বেশ কিছু অনলাইন গনমাধ্যমে। আর এমন খবরের সত্যতা জানতে চিত্র নায়িকা মাহিয়া মাহির সাথে মুঠফোনে যোগাযোগ করলে পাওয়া যায়নি।

Check Also

4

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্ট’, সতর্কতা জারি!! জেনে নিন কখন আঘাত হানবে!

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করা গভীর নিম্নচাপটি আরো সামান্য পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *