Breaking News
Home > রেসিপি > ঘরেই তৈরী করুন টক দই সবচাইতে সহজ রেসিপিতে

ঘরেই তৈরী করুন টক দই সবচাইতে সহজ রেসিপিতে

সব বয়সের মানুষের জন্যই স্বাস্থ্যকর একটি খাবার হলো টক দই। শুধু তাই নয়, মজাদার বিভিন্ন রান্নাতেও টক দই না দিলে মনে হয় কী যেন বাকি রয়ে গেলো। বাজারে কেনা দইয়ের মান একেক জায়গায় একেক রকম, ভেজালের ভয় তো আছেই। কিন্তু কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই বাড়িতে যদি তৈরি করে ফেলা যায় দই তাহলে কেমন হয় বলুন তো?

দই তৈরি করতে অনেকেই ভয় পান, ভাবেন কী না কী দরকার হবে। অনেকে আবার দই তৈরির চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে আর ওমুখো হন না। এখানে যে রেসিপি দেওয়া হলো, তা অনুসরণ করলে নিতান্ত আনাড়ি রাঁধুনিও তৈরি করে ফেলতে পারবেন নিখুঁত দই। আর এর জন্য খুব বেশি উপাদানেরও দরকার হবে না।

rupcare_sour-yogurt

উপকরণ

– এক লিটার দুধ
– এক চামচ দই
– মাটির ছোট দুটি ভাঁড়

প্রণালী

১) একটি নন-স্টিক সসপ্যানে দুধ ঢেলে চুলোয় একটু গরম করে নিন। সাবধান, দুধ ফুটাবেন না কিন্তু! সামান্য গরম করতে হবে শুধু। এমনভাবে গরম করবেন যাতে এর মাঝে আঙ্গুল ডুবিয়ে দেখা যায় গরম হয়েছে কী না। খাবারে ব্যবহারের থার্মোমিটার থাকলে দেখে নিন ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা হয়েছে কি না। গরম হলে চুলা নিভিয়ে দিন।

২) এরপর এই গরম করা দুধ মাটির ভাঁড় দুটোয় ঢেলে নিন। এক্ষেত্রে মাটির ভাঁড় ব্যবহার করা ভালো কারণ তাতে দই থেকে অতিরিক্ত পানি বের হয় যাবে আর দই খুব ভালো জমবে। মাটির ভাঁড় না থাকলে, কাঁচ, প্লাস্টিক বা স্টিলের বাটিতেও দই জমাতে পারেন।

৩) এবার এই মাটির ভাঁড়ে থাকা দুধের মাঝে সামান্য পরিমাণ দই দিতে হবে। চা চামচের মাথায় করে সিকি চামচ দই দুধের মাঝে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এটা ভালো করে মনে রাখবেন যে দই পাতার জন্য পুরনো দই ব্যবহার করাটা জরুরী। নিজের বাসায় না থাকলে অন্তত প্রতিবেশীর বাসা থেকে এক চা চামচ দই নিয়ে আসুন। খুব অল্পই প্রয়োজন হবে।

৪) এরপর দই পাতা পাত্র রেখে দিন কক্ষ তাপমাত্রায়। কিচেন কেবিনেটে রাখতে পারেন বা একটি বড় বোল চাপা দিয়ে টেবিলেও রাখতে পারেন। তবে অবশ্যই উষ্ণ জায়গায় রাখতে হবে। ঠাণ্ডা জায়গায় রাখা যাবে না। আর ফ্রিজে তো রাখাই যাবে না।

৫) এভাবে ৬-৮ ঘন্টা রেখে দিলেই তৈরি হয়ে যাবে দই। শীতকালে আরেকটু বেশি সময় রাখতে পারেন। গরমকালে আরো কম সময় লাগতে পারে। তবে এর ওপর নজর রাখা জরুরী। কারণ গরমকালে বেশি সময় বাইরে রেখে দিলে দই টকে নষ্ট হয়ে যাবে। যখন দেখবেন দই জমে গেছে, তখন একে ফ্রিজে রাখতে পারেন, রান্নায় ব্যবহার করতে পারেন অথবা খেয়ে নিতে পারেন তখনই।

বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন প্রয়োজনীয় সকল স্বাস্থ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের পেজ স্বাস্থ্য সেবা ।। Health Tips এ লাইক দিন! 

Check Also

সুস্বাদু বাটার চিকেন এবং গার্লিক নান এর রেসিপি

রুটি দিয়ে খান মুরগির মজাদার পদ। বাটার চিকেন এবং গার্লিক নান এর কথা শুনলে সবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *