Breaking News
Home > অবাক বিশ্ব > জানেন, এই ফার্মে কেন প্রকাশ্যেই পচছে মানুষের মৃতদেহ?

জানেন, এই ফার্মে কেন প্রকাশ্যেই পচছে মানুষের মৃতদেহ?

খোলা মাঠের উপর রাখা সারি সারি তারের খাঁচা৷ প্রতিটির মধ্যে সযত্নে রাখা এক একটি মানুষের মৃতদেহ৷ প্রকাশ্যেই পচছে সেগুলি৷ কেয়ারটেকার এসে সেগুলির দেখভালও করছেন৷ এ দৃশ্য দেখে মনে হতেই পারে কোনও সাইকোপ্যাথের কাজ৷ কিন্তু তা নয়৷

তাহলে কেন এভাবে পচছে মৃতদেহ?

আমেরিকার এই ফার্মে ভিতরের দৃশ্য দেখলে শিউরে উঠবেন অনেকে৷ বিশ্বে এরকম ফার্ম একমাত্র এখানেই আছে৷ কিন্তু কেন প্রকাশ্যেই পচছে মানুষের মৃতদেহ? আসলে এই ফার্ম একটি গবেষণাগার৷ মানুষের মৃতদেহ এখানে রাখা হয়েছে বিশেষ পরীক্ষার জন্যই৷ মৃত্যুর পর দেহের পচন পরীক্ষার জন্যই বিজ্ঞানীরা এভাবে রাখেন মৃতদেহগুলিকে৷ শুধু খোলা জায়গাতেই নয়, বিভিন্ন পরিবেশ ও পরিস্থিতিতে মৃতদেহগুলিকে পর্যবেক্ষণের জন্য রাখা হয়৷ যেমন জলে ডুবিয়ে বা গাড়ির মধ্যে রেখে পচনের হার পরীক্ষা করেন বিজ্ঞানীরা৷ বৈজ্ঞানিক পরিভাষায় এই পদ্ধতিতে বলা হয়, ‘হিউম্যান ট্যাফোনমি’৷

কেন এই পরীক্ষা চলে? বিজ্ঞানীরা এভাবেই পরীক্ষা করে দেখেন মৃতদেহের পচন কি সারা বিশ্বেই একরকমের প্রক্রিয়া, নাকি অন্যরকম৷ তাপমাত্রা ও অন্যান্য পরিস্থিতিতে আলাদা কোনও প্রভাব পড়ে কি না, তাও খতিয়ে দেখা হয়৷ মানবদেহের পচন অত্যন্ত জটিল এক জৈবিক প্রক্রিয়া৷ এবং, বিভিন্ন পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে তা আলাদাই হয়৷ সেই সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম জিনিসই পরীক্ষা করা হচ্ছে এই গবেষণাগারে৷

তাতে অবশ্য মানবজাতিরই কল্যাণ৷ পচন নিয়ে পর্যবেক্ষণ ফরেন্সিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে বিশেষ সহায়ক৷ কোনও অপরাধের ঘটনায় মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করে যে সিদ্ধান্তে পৌঁছন বিশেষজ্ঞরা তা এই গবেষণার খাতিরেই৷ এবং, এই পর্যবেক্ষণ যত সঠিক হবে, ততই মৃতদেহের প্রকৃতি থেকে অপরাধ নিয়ে নিখুঁত সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারবেন বিশেষজ্ঞরা৷

আপাতত মার্কিন মুলুকে থাকলেও বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তেও এই ধরনের ফার্ম খোলর পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে৷ ভারতেও খোলা হতে পারে এই বিশেষ গবেষনাগার৷

রূপচর্চা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক যে কোন তথ্যের জন্য আমাদের পেজ স্বাস্থ্য সেবা ।। Health Tips এ লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন।

Check Also

পৃথিবীর সবচেয়ে হাড় হিম করা ১০টি রীতি যা আজও পালিত হয়!!

পৃথিবীতে আজও এমন বেশ কিছু রীতি বিভিন্ন মানবগোষ্ঠীর মধ্যে প্রচলিত রয়েছে, যা সভ্য সমাজে বসে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *